Golden Bangladesh
Eminent People - প্রথম শহীদ রফিক উদ্দিন আহমদ

Pictureপ্রথম শহীদ  রফিক উদ্দিন আহমদ
Nameপ্রথম শহীদ রফিক উদ্দিন আহমদ
DistrictManikganj
ThanaNot set
Address
Phone
Mobile
Email
Website
Eminent Typeভাষা আন্দোলন
Life Style

ভাষা আন্দোলনের 
প্রথম শহীদ 
রফিক উদ্দিন আহমদ
জন্মঃ ৩০ অক্টোবর ১৯২৬
মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার পারিল গ্রাম
মৃত্যুঃ ২১ ফেব্রুয়ারী ১৯৫২
পিতাঃ আব্দুল লতিফ
মাতাঃ রাফিজা খাতুনশিক্ষা জ্ঞান আর বিপ্লবের অগ্নিমন্ত্রে উদ্দীপ্ত পারিলে ১৯২৬ সালের ৩০ অক্টোবর জন্মগ্রহন করেন ভাষা আন্দোলনের প্রথম শহীদ রফিক উদ্দিন আহমদ। রফিকের দাদার নাম মোঃ মকিম মোঃ মকিমের ঘরে জন্ম নেন জরিপ উদ্দিন,তরিপ উদ্দিন,ওয়াসিম উদ্দিন,আব্দুল লতিফ এই আব্দুল লতিফই রফিকের  গর্বিত পিতা। মা রাফিজা খাতুন এদের ঘর আলো করে জন্ম নেন রফিক উদ্দিন আহমদ ,আব্দুর রশিদ ,আব্দুল খালেক ,আব্দুস সালাম , খোরশেদ আলম ,আলেয়া বেগম , জাহানারা বেগম।  বাল্যকাল থেকেই রফিক ছিলেন চঞ্চল প্রাণোচ্ছল প্রাণোচ্ছলতার শিল্পীত প্রকাশও ঘটেছিল কৈশর বয়সেই। সুঁই-সুতায় নকশা আঁকায় হাত পেকে ছিল বেশ। রফিকের দূরন্তপনার মূখ্য বিষয় ছিল গাছে চড়া আর গাছে চড়তে গিয়েই একবার তার পা ভাঙে। চিকিৎসার জন্য সে সময় তাকে কলকাতা পর্যন্তও পাঠানো হয়েছিল চঞ্চল রফিকের ভবিষ্যত ভেবে তার বাবা তাঁকে কলিকাতার মিত্র ইন্সটিটিউটে ভর্তি করিয়ে দেন। কিন্তু সেখানে তাঁর মন টেকেনি। কবছর পর ফিরে আসেন দেশে। ভর্তি করিয়ে দেয়া হয় সিংগাইরের বায়রা হাই স্কুলে। স্কুল থেকেই ম্যাট্রিক পাশ করেন তিনি এরপর কলেজ জীবন ভর্তি হন দেবেন্দ্র কলেজের বাণিজ্য বিভাগে এবং ১ম ২য় বর্ষ পর্যন্ত লেখাপড়া করেন। তারপর লেখাপড়া বন্ধ। তবে লেখাপড়া ছেড়ে থাকা তাঁর সম্ভব হয়নি আবারও ভর্তি হন ঢাকার জগন্নাথ কলেজে জগন্নাথ কলেজেল ছাত্র থাকাকালেই শাহাদাৎ বরণ করেন তিনি  

কোথায় কিভাবে শহীদ হন রফিক

মাথায় গুলিবিদ্ধ শহীদ রফিকের লাশ। আলোকচিত্রঃ আমানুল হক

২১ ফেব্রুয়ারী মামাতো ভাই মোশাররফ হোসেনের সাথে লক্ষ্মীবাজারের দিকে যাওয়ার পথে মেডিকেল কলেজের গেটের কাছে এলে পুলিশ তাঁদের উত্তর দিকে যেতে বাধা দেয় তখন তাঁরা মেডিকেল কলেজ প্রাঙ্গনের মধ্যদিয়ে লক্ষ্মীবাজারের দিকে রওনা দেন এবং মেডিকেল কলেজ হোস্টেলের উত্তর পশ্চিম দিকের গেটের নিকট পৌঁছান সেখানেও একদল বন্দুকধারী পুলিশকে দেখতে পান তাঁরা। তখন মোশাররফ হোসেন হোস্টেলের ১৩ ১৯ নং শেডের পেছনে গিয়ে দাঁড়িয়ে একজনের সাথে কথা বলতে থাকেন। রফিক তখন দাঁড়িয়ে ছিলেন ২২ নম্বর শেডের কাছে। কিছুক্ষণ পরই একদল পুলিশ হোস্টেলে প্রবেশ করেই গুলিবর্ষণ শুরু করে। এদের গুলিতে হোস্টেলের বারান্দাতেই নিহত হন রফিক তথ্যগুলো

 
Rationale
UploaderRaihan Ahamed