Golden Bangladesh
Eminent People - এম এ মুহিত

Pictureএম এ মুহিত
Nameএম এ মুহিত
DistrictBhola
ThanaNot set
Addressঢাকা
Phone
Mobile
Email
Website
Eminent Typeপর্বতারোহী
Life Style

এম এ মুহিত

সভাপতি, বাংলা মাউন্টেনিয়ারিং এন্ড ট্রেকিং ক্লাব (বিএমটিসি)

পৃথিবীতে এভারেস্টের সমকক্ষ ৮,০০০ মিটারের (২৬,২৫০ ফুট) অধিক উচ্চতার পর্বতশৃঙ্গ আছে ১৪টি।  এম এ মুহিত পৃথিবীর একমাত্র বাঙালী যিনি চার বার জয় করেছেন ৮,০০০মিটারের চেয়ে উঁচু তিনটি পর্বতশৃঙ্গ: এভারেস্ট (উত্তর ও দক্ষিণ দিক দিয়ে দুবার আরোহন করেছেন), চো-ইয়ো এবং মানাসলু।  এছাড়াও তিনি হিমালয়ের ছয়টি ৬,০০০ মিটার উচ্চতার পর্বতশৃঙ্গ: চুলু ওয়েস্ট, মেরা পর্বতশৃঙ্গ, সিংগু চুলি, লবুজে, ইমজাৎসে ও নেপাল-বাংলাদেশ মৈত্রী শিখর (অবিজিত এই শিখরে প্রথম সফল আরোহনের সম্মানে নেপাল মাউন্টেনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশন এই নামকরনের ব্যবস্হা করে)।

এম এ মুহিত ১৯৭০ সালে দ্বীপ-জেলা ভোলা-র বোরহানউদ্দিন থানার গঙ্গাপুর গ্রামে জন্ম গ্রহণ করলেও বড় হয়েছেন পুরোনো ঢাকায় (মাতা: আনোয়ারা বেগম, পিতা: মনোয়ার হোসেন)।  তিনি পোগোজ স্কুল থেকে মাধ্যমিক, নটরডেম কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং ঢাকা সিটি কলেজ থেকে বি. কম পাস করেন।  হিমালয় এবং বাংলাদেশের পাহাড় ও উপকূলের প্রকৃতি ও জীবন নিয়ে এ পর্যনড় তার ছয়টি একক ও চারটি যৌথ আলোকচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সেপ্টেম্বর-অক্টোবর ২০১৩   শিশাপাংমা পর্বতশৃঙ্গ অভিযানে অংশগ্রহন (পৃথিবীর ১৪তম পর্বতশৃঙ্গ: ৮,০১৩মি. / ২৬,২৮৯ফুট)

৬,৪০০মি. / ২১,০০০ফুট পর্যন্ত আরোহন; বিরূপ আবহাওয়ার জন্য অভিযান সফল হয়নি)।

এপ্রিল-মে ২০১৩ কাঞ্চনজংঘা পর্বতশৃঙ্গ অভিযানে অংশগ্রহন (পৃথিবীর ৩য় উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ: ৮,৫৮৬মি. /   ২৮,১৬৯ফুট) ৭,৬০০মি. / ২৫,০০০ফুট পর্যন্ত আরোহন; বিরূপ আবহাওয়ার জন্য অভিযান সফল হয়নি।

১৭ অক্টোবর ২০১২ ইমজাৎসে পর্বতশৃঙ্গ জয় (৬,১৬০মি. / ২০,২১০ফুট)।

১৯ মে ২০১২ নেপাল দিয়ে এভারেস্ট পর্বতশৃঙ্গ জয় (পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ: ৮,৮৪৮মি. / ২৯,০২৯ফুট)।

১২ অক্টোবর ২০১১ মানাসলু পর্বতশৃঙ্গ জয় (পৃথিবীর অষ্টম উচ্চতম পবর্তশৃঙ্গ: ৮,১৬৩মি. / ২৬,৭৮০ফুট)।

২১ মে ২০১১   তিব্বত দিয়ে এভারেস্ট পবর্তশৃঙ্গ জয় (পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ: ৮,৮৪৮মি. / ২৯,০২৯ফুট)। ।

১৮ অক্টোবর ২০১০ নেপাল-বাংলাদেশ মৈত্রী শিখর জয় (অজেয় পবর্তশৃঙ্গ: ৬,২৫৭মি. / ২০,৫২৮ফুট)।

এপ্রিল-মে ২০১০ তিব্বত দিয়ে এভারেস্ট পর্বতশৃঙ্গ অভিযানে অংশগ্রহন (বাংলাদেশের প্রথম অভিযান; বিরূপ

আবহাওয়ার জন্য অভিযান সফল হয়নি)।

২৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯   চো-ইয়ো পবর্তশৃঙ্গ জয় (পৃথিবীর ষষ্ঠ উচ্চতম পবর্তশৃঙ্গ: ৮,২০১মি. / ২৬,৯০৬ফুট)।

১৯ মে ২০০৯ লবুজে পবর্তশৃঙ্গ জয় (৬,১১৯মি. / ২০,০৭৫ফুট)।

সেপ্টেম্বর-অক্টোবর ২০০৮ মানাসলু পর্বতশৃঙ্গ অভিযানে অংশগ্রহন (৭,০০০মি. / ২৩,০০০ফুট পর্যন্ত আরোহন; বিরূপ

আবহাওয়ার জন্য অভিযান সফল হয়নি)।

০৪ জুন ২০০৮   সিংগু চুলি পর্বতশৃঙ্গ জয় (৬,৫০১মি. / ২১,৩২৮ফুট)।

৩০ সেপ্টেম্বর ২০০৭ মেরা পর্বতশৃঙ্গ জয় (৬,৬৫৪মি. / ২১,৮৩০ফুট)।

১৬ মে ২০০৭ চুলু ওয়েস্ট পর্বতশৃঙ্গ জয় (৬,৪১৯মি. / ২১,০৫৯ফুট)।

মার্চ ২০০৫   ভারতের হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ইনস্‌টিটিউট থেকে উচ্চতর পর্বত-আরোহন প্রশিক্ষণ গ্রহন।

সেপ্টেম্বর-অক্টোবর ২০০৪   ভারতের হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ইনস্‌টিটিউট থেকে মৌলিক পর্বত-আরোহন প্রশিক্ষণ গ্রহন।

মে ২০০৪ অভিযাত্রী ইনাম আল হকের সাথে এভারেস্ট বেস ক্যাম্প ও কালাপাত্থার-শৃঙ্গ অভিযানে অংশগ্রহন।

লেখক : এম এ মুহিত  

 
Rationale
UploaderMd. Mijanur Rahman Niloy