Golden Bangladesh
Eminent People - মুহম্মদ দবিরুল ইসলাম

Pictureমুহম্মদ দবিরুল ইসলাম
Nameমুহম্মদ দবিরুল ইসলাম
DistrictThakurgaon
ThanaNot set
Address
Phone
Mobile
Email
Website
Eminent Typeরাজনীতিবিদ
Life Style
বাংলাদেশেরস্বাধীনতার সূচনা পর্বে ‘‘ রাষ্টভাষা বাংলা চাই’’ আন্দোলন, ঢাকাবিশ্বাবিদ্যালয়ে কর্মচারীদের আন্দোলন, পূর্ব পকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ (বর্তমানে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ) গঠন, যে কজন তেজোদীপ্ত তরুণ ছাত্রনেতা বিশেষঅবদান রেখেছেন তাদের মধ্যে মুহাম্মদ দবিরুল ইসলাম অন্যতম। বঙ্গবন্ধু শেখমুজিবর রহমান ছিলেন তাঁর ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ক্লাসেরসহপাঠী। মুহম্মদ দবিরুল ইসলাম ২৯ ফাল্গুন ১৩২৮ সালে (বাংলা), ১৩ মার্চ ১৯২২সালে ঠাকরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলাধীন বামুনিয়া গ্রামে জন্ম লাভকরেন। তাঁর পিতার নাম মৌলানা তমিজউদ্দিন আহমেদ, মাতা দখতর খানম। মাতামহেরবাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ের প্রখ্যাত জামালপুর জমিদার বাড়ি। তিনি লাহিড়ী এম ই স্কুলথেকে বিভাগীয় বৃত্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান লাভ করেন। ঠাকরগাঁও হাই স্কুলহতে ১৯৩৮ সালে প্রথম বিভাগে ম্যাট্রিক পাস করেন । সপ্তম শ্রেণীতে অধ্যয়নকালে রাজশাহী বিভাগীয় ‘‘মায়াদেবী উন্মুক্ত রচনা প্রতিযোগিতায়’’স্বর্ণপদকলাভ করেন। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রাজশাহী সরকারী কলেজ থেকে আই.এপরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে প্রথম বিভাগে চতুর্থ স্থান অর্জন করেন। পরবর্তী সময়েপাকিস্তানের স্বাধীকার আন্দোলন, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বিরোধী ও অন্যান্যআন্দোলনে জড়িয়ে পড়ায় লেখাপড়ায় বিঘ্ন ঘটে এবং সরকারী রোষানলে পড়েন। পরে ১৯৪৭সালে তিনি বি.এ পাস করেন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন শাস্ত্রে ভর্তি হন।বিভিন্ন আন্দোলনের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার এবং ১৯৫৫ সালেকারাবাস থেকে এল.এল বি পরীক্ষা দিয়ে কৃতিত্তের সাথে উর্ত্তীর্ণ হন। ১৯৪৭সালের ৬/৭ সেপ্টেম্বরের ঢাকায় গণতান্ত্রিক যুবলীগের কর্মী সম্মেলনেদিনাজপুর থেকে ছাত্রনেতা দবিরুল ইসলামের নেতৃত্বে মুস্তাফা নূরউল ইসলাম, এমআর আখতার মুকুল ও আব্দুর রহমান যোগদান করেন। ১৯৪৮ সালে নঈমুদ্দিন আহমদকেআহবায়ক করে পূর্ব পাকিস্তান মুসলীগ ছাত্রলীগের প্রথম সাংগঠনিক কমিটি গঠিতহয়। এই কমিটিতে দিনাজপুর জেলা থেকে দবিরুল ইসলাম, ফরিদপুর জেলা থেকে শেখমুজিবর রহমান, কুমিল্লা থেকে অলি আহাদ সহ বিভিন্ন জেলার তেরজন সদস্য হিসেবেঅন্তভূুর্ক্ত হন। ছাত্র মহলে পূর্ব পকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের অভূতপূর্বজনপ্রিয়তা পূর্ব-পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠনে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকেউদ্ধুদ্ধ করে। ১৯৪৮ সালে ভাষা আন্দোলনে দিনাজপুরের নূরুল হুদা, কাদের বক্স, মুসাতফা নূরউল ইসলাম, এম আর আক্তার মুকুল, দবিরুল ইসলাম প্রমুখ নেতৃত্বদেন। ১৯৪৯সালের সেপ্টেম্বর মাসে পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের প্রথম কাউন্সিলঅধিবেশন বসে। এই অধিবেশনে দবিরুল ইসলাম ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রথমসভাপতি নির্বাচিত হন এবং ১৯৫৩ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫৪সালের সাধারণ নির্বাচনে দবিরুল ইসলাম যুক্তফ্রন্টের মনোনীত প্রার্থী হিসেবেনির্বাচিত হন।১৯৫৬ সালে যুক্তফ্রন্টের প্রধানমন্ত্রী আবু হোসেন সরকারেরমন্ত্রীসভায় তিনি প্রতিমন্ত্রী মর্যাদায় পার্লামেন্টারী সেক্রেটারী (শিল্প, বাণিজ্য ও শ্রম) নিযুক্ত হন সে সময়ে তিনি ঠাকুরগাঁওয়ে সুগার মিলস্থাপনের জন্য জোরালো উদ্যোগ গ্রহন করেন। বিরল প্রতিভার অধিকারী মুহাম্মদদবিরুল ইসলাম ১৯৪৯ ও ১৯৫৪ সালে কারা অভ্যন্তরে অকথ্য নির্যাতন ভোগ করায় হৃদরোগসহ নানা রোগে আক্রান্ত হন। ফলে অকালে ১৯৬১ সালে তিনি অকালে ইন্তিকালকরেন।

 তথ্যসূত্র:জেলাতথ্য বাতায়ন
Rationale
UploaderRaihan Ahamed